1. admin@nagorikexpress.com : নাগরিক এক্সপ্রেস : Nagorik Express প্রশাসন
  2. allmohiminulkhan@gmail.com : Khan allmohiminulkhan : Khan allmohiminulkhan
  3. khalidsyful@gmail.com : syful Khalid : syful Khalid
  4. abukawsirahmed638@gmail.com : Abu Kawsar : Abu Kawsar
  5. abdullahyeasir@gmail.com : MASUD Alom : MASUD Alom
  6. mizanbd@gmail.com : Mizan Khan : Mizan Khan
  7. nayemk255@gmail.com : Nayem Nayem : Nayem Nayem
  8. dailydhakartime@gmail.com : Nayim Khan : Nayim Khan
  9. hasan145nazmul@gmail.com : Tarak : Tarak Sarkar
  10. rd278591@gmail.com : RA Rahul : RA Rahul
  11. cablew742@gmail.com : Sojal Mia : Sojal Mia
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৪৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
যশোরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জম্মদিন উপলক্ষে বৃক্ষরোপন কর্মসুচি পালিত মতলব উত্তর মোহনপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যৌথ সভা  বাংলাদেশ পোস্টম্যান ও ডাক কর্মচারী ইউনিয়ন কাউন্সিলে নতুন কমিটির সভাপতি সাইফুল ইসলাম চৌধুরী সাধারন সম্পাদক মূসা আহামেদ  বাসাইল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ৩১ শিক্ষক-কর্মচারীর ফেসবুকে মন্তব্যের জেরে দুই পক্ষের সংঘর্ষ- আহত ৮ রানিশংকৈলে স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে নির্যাতনের শিকার যুবক লৌহজং প্রেসক্লাবের প্রথম বর্ষপূর্তি উদযাপন “মনোহরদীর বকচরে ফ্রি ডায়বেটিস এবং ব্লাড গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন” সিরাজদিখানে কৃষি, জলজ ও প্রাণী সম্পাদ বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত ৪ নং লেহেম্বা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের জন্য এডহক কমিটি ঘোষণা করলেন রানিশংকৈল উপজেলা আওয়ামীলীগ

করোনা আক্রান্তদের সনাক্ত করতে পারেনি ‘থার্মাল স্ক্যানার মেশিন’

  • আপডেট সময় : রবিবার, ৮ মার্চ, ২০২০
  • ১৫৮ সময় দেখা

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ৩ রোগী সনাক্ত করা হয়েছে। তবে বিমানবন্দরে ব্যবহৃত থার্মাল স্ক্যানার মেশিন করোনা আক্রান্তদের সনাক্ত করতে পারেনি। আক্রান্ত রোগীরাই হটলাইনের মাধ্যমে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) সাথে যোগাযোগ করে নিজেদের তথ্য দিয়েছেন।

রোববার (৭ মার্চ) বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে আইইডিসিআরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, ‘করোনায় আক্রান্ত ওই ৩ বাংলাদেশির মধ্যে দু’জন সম্প্রতি ইতালি থেকে ফিরেছেন। তাদের মধ্যে একজন নারী ও দুইজন পুরুষ। এদের দুইজন একই পরিবারে সদস্য।’

তিনি বলেন, ‘জ্বর ও কাশি নিয়ে এই তিন ব্যক্তি আইইডিসিআরে যোগাযোগ করে। এরপর গত ২৪ ঘণ্টায় তাদের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষায় তারা পজিটিভ প্রমাণিত হন।’

সাধারণ মানুষকে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়ে সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, এখন পর্যন্ত তিনজন আক্রান্ত হয়েছে। এতে করে সারা বাংলাদেশে এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে এমন কিছু বলা যাবে না। স্কুল-কলেজ বন্ধ করার প্রয়োজন নেই। জনসমাগমের মধ্যে না যেতে পরামর্শ দেবো, বাসাতে থাকাই ভালো। তাদের শনাক্ত করা যায় এমন কিছু প্রশ্ন না করার আহ্বান জানান তিনি।

করণীয় বলতে গিয়ে তিনি বলেন, সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়া ও কাশি শিষ্টাচার মেনে চলার বিকল্প নেই। এজন্য গণমাধ্যমসহ দেশবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

আইইডিসিআর এর এই পরিচালক বলেন, আমরা সব সময় বলেছি, প্রস্তুতির কোনও শেষ নাই। আমরা আইসোলেশন ইউনিট করেছিলাম। এখন আইসোলেটেড হসপিটাল আইডেন্টিফাই করছি। এই আইসোলেটেড হসপিটালগুলো ঢাকার বাইরেও আইডেনটিফাইড করা হচ্ছে। এর পরবর্তী পদক্ষেপ হিসেবে যদি রোগী আরও বৃদ্ধি পায়, আমরা আশঙ্কা করছি না এত দ্রুত ছড়িয়ে পড়বে, কিন্তু যদি রোগী আরও বৃদ্ধি পায় স্কুল কলেজ বা কমিউনিটি সেন্টারে যদি হাসপাতাল করার প্রয়োজন হয় সেই পরিকল্পনা আমাদের নেওয়া আছে।

জানা গেছে, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্তে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তিনটি স্ক্যানারের দুটিই নষ্ট। মাত্র একটি থার্মাল স্ক্যানার সচল রয়েছে। অন্যদিকে ভিআইপি যাত্রীদের যাতায়াতের স্থানে থাকা থার্মাল স্ক্যানারটিও নষ্ট। ভিআইপিদের হ্যান্ডহেল্ড স্ক্যানার দিয়ে তাপমাত্রা পরীক্ষা করা যাচ্ছে। সাধারণ যাত্রীদের ১টি স্ক্যানার দিয়ে তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে শাহজালাল বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ বলেন, একটি থার্মাল স্ক্যানার দিয়ে কাজ চালানো হচ্ছে। ২ থার্মাল স্ক্যানার নষ্ট থাকায় হ্যান্ডহেল্ড স্ক্যানার মেশিনও ব্যবহার করা হচ্ছে।

বিশ্বজুড়ে ইবোলা সংক্রমণ শুরু হলে ২০১৪ সালের নভেম্বরে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তিনটি থার্মাল স্ক্যানার মেশিন বসানো হয়। তিনটি মেশিনের মধ্য একটি ভিআইপি জোনে, বাকি দুটি সাধারণ যাত্রীদের যাতায়াতের স্থানে বসানো হয়। তবে বিভিন্ন সময়ে এই থার্মাল স্ক্যানারগুলো বিকল হয়েছে। ২০১৬ সালে জিকা ভাইরাসের নিয়ে আতঙ্ক শুরু হলে সেসময়ও শাহজালাল বিমানবন্দরের দুটি স্ক্যানার মেশিন বিকল  হয়ে পড়ে। এ কারণে তখন যাত্রীদের সাধারণ থার্মোমিটারের মাধ্যমে জ্বর মাপা হয়েছিল।

অন্যদিক চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ও সিলেটের ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে একটি করে থার্মাল স্ক্যানার থাকলেও সেগুলো নষ্ট। এ দুই বিমানবন্দরে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত শনাক্তের কাজ চলছে হ্যান্ডহেল্ড স্ক্যানারের মাধ্যমে।

বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস আতঙ্ক তৈরি করলেও বাংলাদেশের বিমানবন্দরগুলোর এই করুণ অবস্থা ও থার্মাল স্ক্যানার মেশিনের মান নিয়ে সমালোচনা করছেন অনেকেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরো সংবাদ
© নাগরিক এক্সপ্রেস । সর্বসত্ব সংরক্ষিত। নাগরিক এক্সপ্রেস এর প্রকাশিত প্রচলিত কোনো সংবাদ তথ্য ছবি আলোকচিত্র রেখা চিত্র ভিডিও চিত্র অডিও কনটেস্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামত এর জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ণ লেখক এর
Theme Customized By Theme Park BD
error: Content is protected !!