1. admin@nagorikexpress.com : নাগরিক এক্সপ্রেস : Nagorik Express প্রশাসন
মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :

নবীগঞ্জে ২৫শ’ টাকা সহায়তা তালিকায় স্বজনপ্রীতির অভিযোগঃচেয়ারম্যান অবরুদ্ধ

  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১৯ মে, ২০২০
  • ৭৬ সময় দেখা

নবীগঞ্জে ২৫শ’ টাকা সহায়তা তালিকায় স্বজনপ্রীতির অভিযোগঃচেয়ারম্যান অবরুদ্ধ

হবিগঞ্জের জেলা প্রতিনিধি,ফখরুদ্দিন ঃ প্রধানমন্ত্রীর ২৫০০/- টাকা সহায়তা তালিকা নিয়ে নবীগঞ্জের কালিয়ারভাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যানের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় শ্রমিক ও দিনমজুররা তাকে অবরুদ্ধ করে রাখলে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। শ্রমিকদের অভিযোগ তালিকায় চেয়ারম্যান নিজের স্বজনদের নাম দিয়েছেন। স্বজনপ্রীতি করেছেন। আর চেয়ারম্যানের দাবি, দেশে তার কোন স্বজন নেই।

স্থানীয়রা জানায়, ওই উপজেলার কালিয়ারভাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম নিজে ১৪১টি নামের তালিকা তৈরী করেন। বাকি প্রত্যেক মেম্বার করেন ৫৫টি করে নামের তালিকা। চেয়ারম্যানের তালিকায় তার স্বজনদের নাম তুলে দেয়া হয়েছে বলে দাবি করেন স্থানীয় সিএনজি অটোরিকশা, রিকশা শ্রমিক ও কতিপয় দিনমজুর। শুক্রবার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি ইমদাদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আহমেদসহ সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিক সমিতির সভাপতি আরজু মিয়া ইউনিয়ন অফিসে যান। আরজু ও ফরহাদ আপন চাচাতো ভাই। সেখানে তারা চেয়ারম্যানের নিকট তালিকা দেখতে চান। কিন্তু চেয়ারম্যান প্রথমে তা দেখাতে অস্বীকৃতি জানান। এ নিয়ে চেয়ারম্যানের সাথে তাদের বাকবিতন্ডা হয়। শেষ পর্যন্ত শনিবার তালিকা নেয়ার কথা বলেন। কথা অনুযায়ী শনিবার তারা ফের তালিকা নিতে যান। কিন্তু তালিকা দিতে বিলম্ব হলে চেয়ারম্যানের সাথে তর্কাতর্কিতে জড়িয়ে পড়েন শ্রমিক নেতা আরজু মিয়া। এক পর্যায়ে বিএনপি নেতা মির্জা ইউপি চেয়ারম্যানকে মারতে উদ্যত হন। এ সময় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। পরে তারা চেয়ারম্যানকে তার অফিসে অবরুদ্ধ করে রাখেন। খবর পেয়ে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে।

ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমার কোন আত্মীয় দেশে নেই। সবাই লন্ডনে অবস্থান করছেন। তালিকায় আমার কোন আত্মীয়ের নাম দেয়া হয়নি। যাদের নাম দেয়া হয়েছে সবাই দরিদ্র। কিন্তু হামলাকারীরা আমাকে লাঞ্ছিত করেছে। ফরহাদ আমাকে কিলঘুষি দিয়েছে। তারা অফিসের ফার্নিসার ভাংচুর করে। আমার সাথে থাকা প্রায় ৬০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়।

এ ঘটনায় চেয়ারম্যান বাদী হয়ে জড়িতদের বিরুদ্ধে নবীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মির্জা হোসাইন জানান, প্রণোদনার তালিকায় শ্রমিকদের নাম না থাকার কারন জানতে গিয়ে অফিসে যাই এবং তালিকা দেখানোর অনুরোধ করি। এতে চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হলে হট্রগোলের ঘটনা ঘটে। নবীগঞ্জ থানর অফিসার ইনচার্জ মোঃ আজিজুর রহমান চেয়ারম্যান কর্তৃক দরখাস্ত দাখিলের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরো সংবাদ
© নাগরিক এক্সপ্রেস । সর্বসত্ব সংরক্ষিত। নাগরিক এক্সপ্রেস এর প্রকাশিত প্রচলিত কোনো সংবাদ তথ্য ছবি আলোকচিত্র রেখা চিত্র ভিডিও চিত্র অডিও কনটেস্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামত এর জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ণ লেখক এর
Theme Customized By Theme Park BD
error: Content is protected !!