1. admin@nagorikexpress.com : নাগরিক এক্সপ্রেস : Nagorik Express প্রশাসন
  2. rd278591@gmail.com : Rahul Rahulrd : Rahul Rahulrd
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০২:০৪ অপরাহ্ন
নোটিশ :
নাগরিক এক্সপ্রেস পত্রিকার সাংবাদিক হিসাবে কাজ করতে হলে আজই আমাদের অনলাইন পেইজে অথবা ই-মেইল নাম্বারে অথবা আমাদের মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করুন প্রতিটি জেলার শহরে সাংবাদিক নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।   নাগরিক এক্সপ্রেস এর বিভিন্ন জেলার সাংবাদিকদের নাম এবং পদবী। নাম: তানজির আহম্মেদ সানি রিপোর্টার: ঢাকা জেলা নাম: নোমান খান রিপোর্টার: মোহাম্মদপুর ঢাকা। নাম: ইসমাইল হোসেন রিপোর্টার:রাজশাহী জেলা নাম : মেজবাহ উদ্দিন রিফাত রিপোর্টার : মোহাম্মদপুর ঢাকা মোঃ জাহাঙ্গীর রাজীব রাজু রিপোর্টার - ভেড়ামারা, কুষ্টিয়া। নাম: প্রান্ত মৃধা রিপোর্টার: নরসিংদী নামঃসাকিব হাসান প্রিয়াস প্রতিনিধিঃ কৃষি ইনস্টিটিউট, ব্রাহ্মণবাড়িয়া মকবুল হোসেন প্রতিনিধিঃ মিঠামইন,কিশোরগঞ্জ নাম : খালিদ সাইফুল চঞ্চল রিপোর্টার : কুষ্টিয়া জেলা নাম: এইচ এম জুয়েল রিপোর্টার: মাগুরা সদর মাগুরা জেলা নাম: আজাদ নাদভী রিপোর্টার: মুন্সিগঞ্জ জেলা নাম: ইসমাইল হোসেন রিপোর্টার:রাজশাহী জেলা নাম:মোঃইনজামামুল হক জুয়েল রিপোর্টার:সাতক্ষীরা জেলা নামঃ ফৌজি হাসান খান রিকু রিপোর্টারঃ লৌহজং উপজেলা নামঃ মুশফাকুর রহমান সিলেট জেলা প্রতিনিধি নামঃইমতিয়াজ উদ্দিন কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি    
শিরোনাম :

মুরগীর চেয়ে পেঁয়াজের দাম বেশী!

  • আপডেট সময় : রবিবার, ৩ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৩৬৭ সময় দেখা

নাগরিক এক্সপ্রেস ডেস্ক: বাজারে প্রতিদিনই বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। প্রতিকেজি পেঁয়াজ এখন বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকায়।

অথচ ১১০ থেকে ১১৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে মুরগী। প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগী বিক্রি হচ্ছে এই দামে।

ক্রেতারা বলছেন, খেয়াল খুশিমত পেঁয়াজের দাম বাড়ােচ্ছেন বিক্রেতারা। এক সপ্তাহ না যেতেই কেজিতে দাম বাড়িয়েছেন অন্তত ২০ টাকা।

এতে দুর্ভোগে পড়েছেন ভোক্তা সাধারণ। এজন্যে তারা দায়ী করছেন আসাধু ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট ও নিয়মিত বাজার মনিটিরিং না করাকে।

জানা গেছে, ভারত পেঁয়াজ রপ্তানী বন্ধের ঘোষণা দেয়ার পরপরই দেশের বাজারে ওই পণ্যের দামে চরম অস্থিরতা সৃষ্টি হয়।

২০-২৫ টাকা থেকে একলাফে ৮০-৯০ টাকা ধরে বিক্রি শুরু হয় পেঁয়াজ। দিনে দিনে ১০০ টাকা ছাড়িয়ে যায় পেঁয়াজের দাম।

পরে মিয়ানমার থেকে রপ্তানি শুরু হলে পাইকারি বাজারে দাম কমলেও খুচরা বাজারে মোটেও এর প্রভাব পড়েনি।

বিভিন্ন পাইকারি দোকানে ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। খুচরা বিক্রেতারা বিক্রি করছেন ১৩০ টাকায়। কেউবা বিক্রি করছেন ১২৫ টাকায়। সদর ব্যতীত অন্যান্য বাজারের অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানেই পেঁয়াজ রাখছেন না ব্যবসায়ীরা।

যারা রাখছেন তারা আরও উচ্চ মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন বলে জানা গেছে। ফের পেঁয়াজের বাজার অস্থির হওয়ায় চরম বেকায়দায় পড়েছেন ক্রেতা সাধারণ।

ক্রেতারা বলেন, বর্তমানে মোরগ বিক্রি হচ্ছে ১২৫ টাকায়। বাজারে মোরগের চাইতে পেঁয়াজের দাম বেশি। ১৩০ টাকা হলে গড়ে ১টি পেঁয়াজের দামই ১১-১২টাকা। এ অবস্থায় নিত্যপ্রয়োজনীয় অন্য মসলার সাথে পেঁয়াজ কেনা কঠিন হয়েছে পড়েছে।

খুচরা ব্যসায়ীরা জানান, পেঁয়াজ কিনতে আমাদের খরচ বেশি। তাছাড়া পঁচে নষ্টও হয় কিছু। তাই এমন দামে বিক্রি করছি আমরা।

পাইকারি ব্যবসায়অরা বলছেন, আড়তদাররা দাম না ছাড়লে আমাদের কিছু করার থাকে না। কেজি প্রতি খরচসহ ১১৬-১১৭ টাকায় কিনতে হয় আমাদের। সামান্য মুনাফায় ১২০টাকায় বিক্রি করি আমরা।

এ বিষয়ে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা জানান, শুধু এখানে না, সারা দেশেই দাম বেড়েছে। সকল উপজেলায় মনিটরিং করা হচ্ছে। শ্রীঘ্রই এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মুরগীর চেয়ে পেঁয়াজের দাম বেশী!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরো সংবাদ
© নাগরিক এক্সপ্রেস । সর্বসত্ব সংরক্ষিত। নাগরিক এক্সপ্রেস এর প্রকাশিত প্রচলিত কোনো সংবাদ তথ্য ছবি আলোকচিত্র রেখা চিত্র ভিডিও চিত্র অডিও কনটেস্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামত এর জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ণ লেখক এর
Theme Customized By Theme Park BD
error: Content is protected !!