1. admin@nagorikexpress.com : নাগরিক এক্সপ্রেস : Nagorik Express প্রশাসন
বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:১৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
শেখ রাসেল পরিষদ এর নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক হলেন আল-মামুনুর রশিদ। লৌহজংয়ে নৌকা প্রতীক থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় চার চেয়ারম্যান নির্বাচিত লৌহজংয়ে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা ফজলুল হক মণির ৮৩ তম জন্মবার্ষিকী পালিত যশোরে শেখ মণির জন্মদিনে দোয়া-মিলাদ অনুষ্ঠিত জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা-২০২১  উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মতলবে পুস্তক প্রকাশক বিক্রেতা সমিতির বর্ধিত সভা লৌহজংয়ে নৌকার প্রার্থীর সমর্থকদের হামলায় স্বতন্ত্রপ্রার্থীর ছেলে আহত মতলবে তিন কেজি গাঁজাসহ দুই যুবক আটক মতলব মুক্ত দিবস পালিত ৫ম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পুনঃ তফসিল প্রসঙ্গে।

ময়মনসিংহে টলি ব্যাগে অজ্ঞাত লাশ : ৪ খুনিই গ্রেফতার

  • আপডেট সময় : বুধবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৯
  • ২২১ সময় দেখা

ময়মনসিংহে টলি ব্যাগে অজ্ঞাত
লাশ : ৪ খুনিই গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার ময়মনসিংহ:

ক্রাইম পেট্রোলের ঘটনাকে হার মানিয়েছে ময়মনসিংহের পুলিশ। অবাকতো হবারই কথা! অজ্ঞাত স্থানে খুন! লাশ এর ধর ময়মনসিংহ পাটগুদাম ব্রীজের পাশে। এক পা কুড়িগ্রামে আর মাথা, এক পা ও দু’হাত কুড়িগ্রামের রাজার হাটে। খুনিরা অজ্ঞাত স্থানে খুন করে দেহের বিভিন্ন অংশ এভাবেই ছড়িয়ে ছিটিয়ে রাখে বিভিন্ন স্থানে। শুধু তাই নয়, নিহতের লাশও থেকে যায় অজ্ঞাত! লাশের এই অংশ গুলো পাওয়া যায় ২০ অক্টোবর সকালে। সারা দেশে হৈ চৈ লেগে যায়। পরিকল্পিত খুনিরা সত্যিই নিখুদ! তার চেয়ে নিখুদ ও বিচন ময়মনসিংহের পুলিশ। অবাক হওয়ার কিছু নেই। ময়মনসিংহের জেলা গোয়েন্দা সংস্থার পুলিশ ৭ দিনের মাথায় রহস্য উদঘাটন করেরেছে। গ্রেফতার করেছে ৪ খুনিকে, সনাক্ত করেছে লাশের পরিচয়। সত্যি নিখুদ তদন্ত। রূপ কথার গল্পকে যেন হার মানায়। ৩০ অক্টোবর ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সংবাদ সম্মেলন করে পুলিশের সফলতা আর রোমহর্ষক খুনের ঘটনা বর্ণনা করেন।
প্রকাশ, গত ২০ অক্টোবর পাটগুদাম ব্রীজ সংলগ্ন স্থানে ট্রলি ব্যাগ পড়ে থাকতে দেখে জনগণ। পুলিশও সেখানে উপস্থিত হয়। ব্যাগে বোমা সন্দেহে ঘেরাও করে রাখে পুলিশ। রেঞ্জ ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝিসহ অধিনস্থ পুলিম কর্মকর্তারা ঘটনা স্থলে হাজির হন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘটনাটি সারা বিশ্বে ভাইরাল হয়ে যায়। দেশবাসীর চোখ ছিলো ময়মনসিংহের দিকে। রাতেই আসে ঢাকা থেকে বোমা বিশেষজ্ঞ। পরদিন সকালে ব্যাগ খুলে পায় লাশ। অপর দিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খবর আসতে থাকে কুড়িগ্রমে পা, হাত ও মাথা পাওয়া গেছে। তৎপর হয়ে উঠে ময়মনসিংহে পুলিশ। প্রযুক্তি আর বিচনাতার সাথে হিসেব মিলাতে থাকে তারা। ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানায় একটি মামলাও তারা করেন। মামলা নং-১০২ তাং-২৫/১০/২০১৯ ইং। সৎ আর বুদ্ধিমত্তার জেলা পুলিশ সুপার শাহ মোঃ আবিদ হোসেন পিপিএম (বার) এর তদন্ত করার দায়িত্ব দেন জেলা গোয়েন্দা সংস্থার উপর। রেঞ্জে বার বার শ্রেষ্ঠ হওয়া ডিবির পুলিশ পরিদর্শক শাহ মোঃ কামাল আকন্দ পিপিএম (বার) তদন্ত কাজ শুরু করেন। যদিওবা মামলার তদন্তভার ন্যস্ত হয় এস আই আকরাম হোসেনের উপর। ্প্রযুক্তি আর বিচন বুদ্ধি নিয়ে মাঠে নামেন মূলত তিন জন। তাদের মধ্যে পুলিশ পরিদর্শক শাহ মোঃ কামাল, এস আই আকরাম হোসেন ও এ এস আই জুয়েল। তারা তাদের টিম নিয়ে ধাবরিয়ে বেড়ায় কুড়িগ্রাম, তারাকান্দা, পূর্বধলা ও গাজীপুর। তথ্য অনুসন্ধান, জিজ্ঞাসাবাদ ও আটকের মধ্যদিয়ে বেড়িয়ে আসতে থাকে সঠিক তথ্য। গত ২৮ অক্টোবর ময়মনসিংহের ডিবি পুলিশ গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর থেকে হত্যায় জড়িত সন্দেহে অভিযান চালিয়ে ৪ জন আটক করে। তারা হলেন ফারুক মিয়া (২৫),হৃদয় মিয়া (২০), সাবিনা আক্তার (১৮) ও মৌসুমী আক্তার (২২)। তাদের কাছ থেকে ডিবি পুলিশ তাদের হাতে খুন হওয়া ভিকটিমের নাম জানতে পারে। আটককৃতরা ঘটনার দ্বায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় আদালতে জবানবন্দি দেন। পুলিশ তাদের কথামত হত্যায় ব্যবহার করা ছুড়ি, ব্যাগ, ইট ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করে।
ঘটনা সুত্রে জানা যায়, খুন হওয়া বকুরের বাড়ি নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলা হুগলা গ্রামে। তার বাবার নাম ময়েজ উদ্দীন। একই এলাকার প্রতিবেশী গ্রেফতার হওয়া সাবিনাকে খুন হওয়া বকুল ভালোবাসার জন্য উত্যক্ত করতো।
দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনায় খুন করা হয় বকুলকে। মোবাইল ফোনে ফুসলিয়ে বকুলকে গাজীপুরে জয়দেব পুরের খুনিদের ভাড়া বাসায় বকুলকে নিয়ে যাওয়া হয়। রাতেই খুনিরা তাদের ভাড়া বাসায় বকুলকে খুন করে। বকুলকে খুন করার পর লাশের দু’হাত, দ’ুপা ও মাথা নিয়ে যায় সাবিনা ও তার ভাবী মৌসুমী। তারা এগুলো কুড়িগ্রাম জেলার দু’টি স্থানে ফেলে আসে। অপর দিকে বাকি দেহ হৃদয় ও ফারুক ময়মনসিংহের পাটগুদাম ব্রীজ মোড়ে টরি ব্যাগে ভরে ফেলে যায়। পৃথক পৃথক স্থানে পুলিশ খুন হওয়া দেহের অংশ উদ্ধার করলেও খুনিরা অজ্ঞাত থেকে যায়। ময়মনসিংহের পুলিশ বিচনার সাথে তদন্ত করে হুগলা থেকে খুনে ব্যবহরিত আংশিক ও জয়দেবপুর থেকে বাকি অংশ উদ্ধার করে, সেই সাথে খুনে জড়িত ৪ জনকে গ্রেফতার করে। যা ময়মনসিংহ পুলিশী তদন্ত ক্রাইম পেট্রোলের তদন্তকেও হার মানিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরো সংবাদ
© নাগরিক এক্সপ্রেস । সর্বসত্ব সংরক্ষিত। নাগরিক এক্সপ্রেস এর প্রকাশিত প্রচলিত কোনো সংবাদ তথ্য ছবি আলোকচিত্র রেখা চিত্র ভিডিও চিত্র অডিও কনটেস্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামত এর জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ণ লেখক এর
Theme Customized By Theme Park BD
error: Content is protected !!