1. admin@nagorikexpress.com : নাগরিক এক্সপ্রেস : Nagorik Express প্রশাসন
শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
চলে গেলেন জাতীয় অধ্যাপক ও মতলবের কৃতি সন্তান ড. রফিকুল ইসলাম ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সভাপতিকে অব্যাহতি মতলব উত্তর ও দক্ষিণে ইউপি নির্বাচনে ১১ নৌকা প্রার্থীর জয় বাসে হাফ ভাড়া শুধুমাত্র ঢাকার মধ্যে : শিক্ষার্থীদের যেসব শর্ত মানতে হবে ইউপি নির্বাচন: ভাঙ্গায় ১২ জয়ীর ১১ জনই নিক্সন চৌধুরীর অনুসারী। গফরগাঁওয়ে দুই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী দুই প্রার্থীর মধ্যে মত বিনিময়। “মনোহরদীতে হাফ পাশের দাবীতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন” লৌহজংয়ে সীমানা বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রাণনাশের হুমকি ডামুড্যায় উপজেলায় ২৯৭ টি মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা ইউপি নির্বাচনে সদস্য প্রার্থী আরিফ ছৈয়াল জনগণের কল্লাণে কাজ করতে চান 

“শায়েস্তাগঞ্জে রমজানের শুরুতেই বেড়েছে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম “

  • আপডেট সময় : সোমবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২০
  • ১২০ সময় দেখা

মোঃফখরুদ্দিন মোবারক,হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃহবিগঞ্জ জেলার শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় করোনাভাইরাসের প্রভাবে বেড়েছে কাচাবাজার সহ অন্যান্য জিনিসপত্রের দাম। জানা যায়, উত্তরবঙ্গ থেকে ট্রাক না আসা এবং স্থানীয় কৃষকদের পরিবহন সমস্যার কারণে সবজির দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। শায়েস্তাগঞ্জের বিভিন্ন বাজারে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে প্রচুর পরিমাণ সবজি নিয়ে এসেছেন কৃষকরা। পাইকাররা সেখানে এসে সবজি ক্রয় করছেন। মৌসুমি সবজি আলু, টমেটো, লাউ, ফুলকপি, বাধাকপি, বরবটিসহ সব ধরনের সবজি থাকলেও দাম তুলনামূলক ভাবে বেশী।

সুতাং বাজারের পাইকার বাছির মিয়া জানান, উত্তরবঙ্গ থেকে ট্রাক না আসায় এবং স্থানীয় কৃষকরা কোনো গাড়ি না পেয়ে বেশী মূল্যে রিক্সায় করে সবজি বাজারে আনছে। ফলে দাম একটু বেশী। পাইকারিভাবে আলু বিক্রি হচ্ছে ২২ থেকে ২৫ টাকা কেজি। টমেটো ২০ টাকা, ফুলকপি ৪০ টাকা, বাধাকপি ২৫ টাকা, ঢেড়শ ৫০ টাকা, বেগুন ৪০টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে এই বাজারে।

গতকাল রবিবার শায়েস্তাগঞ্জের অলিপুর বাজারে ঘুরে দেখা যায়, লেবু ২০টাকা হালি, ধনিয়া পাতা ২০০ টাকা কেজি,গাজর ৮০ টাকা, শসা ৬০টাকা, বাহরপাতার আটি ২৫ টাকা, কাচামরিচ ৮০ টাকা কেজি, কাঠাল ২৭০ টাকা পিস, আনারস ১৫০ টাকা হালি, তরমুজ ৮০ টাকা পিস টমেটো ২০টাকা কেজি,১০ টাকা হালি নাগামরিচ, পেয়াজ ৫৫ টাকা কেজি, রসুন ১২০ টাকা, ছোলা ৭৫ টাকা, খেসারী ডাল ৪৫ টাকা কেজি,মসুরি ডাল১০০ টাকা কেজি, চিনি ৬০ টাকা কেজি ও চাল ৪৫ টাকা কেজি ধরে বিক্রি হচ্ছে। কাচামরিচের দাম বেড়েছে কেজি পিছে ২০ টাকা, মসারী ডালের দাম বেড়েছে কেজি পিছে ৩০ টাকা করে, অন্যান্য জিনিসের দাম বেড়েছে অন্তত ৫-১০ টাকা করে। আগের তুলনায় নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বেড়ে যাওয়ায় নিম্ন ও মধ্যম আয়ের ক্রেতারা পড়েছেন বিপাকে।

রমজান আসাতে জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে এই কথা মানতে নারাজ ব্যবসায়ীরা। তাঁদের দাবি রমজান উপলক্ষে কখনো দাম বাড়ানো হয় না। দাম বাড়ে মূলত সরবরাহ কম থাকলে। এখন সরবরাহ কমেছে, তাই দামও কিছুটা বেড়েছে।

অন্যদিকে মাছের মধ্যে রুই-কাতলা বিক্রি হচ্ছে ২৩০ থেকে ২৮০ টাকায়, তেলাপিয়া ১৪০ থেকে ১৮০ টাকায়, মৃগেল ৩৫০ টাকায়, চিংড়ি প্রকারভেদে ৪৮০ থেকে ৫৫০, লইট্টা ১৬০ থেকে ১৮০ টাকায়, রুপচাঁদা ৫০০ থেকে ৬০০ টাকায় ও ফলি মাছ ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে গত সপ্তাহের তুলনায় ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়েছে কেজিপ্রতি ১৫ থেকে ২০ টাকা। এ ছাড়া কক মুরগি ২৮০, দেশি মুরগি ৩৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মাংসের মধ্যে গরু ৬০০ থেকে ৭০০ টাকায় এবং খাসি ৭০০ থেকে ৭৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মাছ মাংসের দাম ও তুলনামুলকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

রমজান উপলক্ষে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব কয়টি বাজারে ভ্রাম্যমান আদালতের টহল অব্যাহত রয়েছে, সাময়িক পরিস্থিতিতে কাউকে জরিমানা করা হচ্ছে না, সকল ব্যবসায়ীদেরকে সাবধান করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরো সংবাদ
© নাগরিক এক্সপ্রেস । সর্বসত্ব সংরক্ষিত। নাগরিক এক্সপ্রেস এর প্রকাশিত প্রচলিত কোনো সংবাদ তথ্য ছবি আলোকচিত্র রেখা চিত্র ভিডিও চিত্র অডিও কনটেস্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামত এর জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ণ লেখক এর
Theme Customized By Theme Park BD
error: Content is protected !!