1. admin@nagorikexpress.com : নাগরিক এক্সপ্রেস : Nagorik Express প্রশাসন
  2. allmohiminulkhan@gmail.com : Khan allmohiminulkhan : Khan allmohiminulkhan
  3. khalidsyful@gmail.com : syful Khalid : syful Khalid
  4. abukawsirahmed638@gmail.com : Abu Kawsar : Abu Kawsar
  5. abdullahyeasir@gmail.com : MASUD Alom : MASUD Alom
  6. mizanbd@gmail.com : Mizan Khan : Mizan Khan
  7. nayemk255@gmail.com : Nayem Nayem : Nayem Nayem
  8. dailydhakartime@gmail.com : Nayim Khan : Nayim Khan
  9. hasan145nazmul@gmail.com : Tarak : Tarak Sarkar
  10. rd278591@gmail.com : RA Rahul : RA Rahul
  11. cablew742@gmail.com : Sojal Mia : Sojal Mia
বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:১৯ অপরাহ্ন

স্ত্রীকে ধর্ষণ, বিচার চাইতে গেলে স্বামীকে পিটিয়ে পুলিশে সোহার্দ্য করে সাজানো মামলা

  • আপডেট সময় : শনিবার, ২১ মার্চ, ২০২০
  • ৪৬০ সময় দেখা

পলাশ আহমেদ,(কিশোরগঞ্জ)জেলা প্রতিনিধি।

কিশোরগঞ্জের নিকলিতে স্ত্রীকে ধর্ষণ, বিচার চাইতে গেলে স্বামীকে পিটিয়ে পুলিশে সোহার্দ্য করে সাজানো মামলা ফাঁসিয়ে দিলো একটি প্রভাবশালী পরিবার।

ঘটনাটি ঘটেছে কিশোরগঞ্জ জেলার নিকলী থানাধীন পশ্চিম কুর্শা গ্রামে।যার মামলা নং-নিকলী থানা ৫(১২)২০১৯।রুজুকৃত ধারা-৩৮০/৪৬১/৪১১ মোতাবেক।

ধর্ষিতা রেশমা আক্তার বলেন, আমি অসহায় তাই জহিরদের ঘরে আশ্রিত থাকতাম । এই সুযোগে জহির গত ২৪,সেপ্টেম্বর ২০১৯খ্রি. রোজ মঙ্গলবার রাত আনুমানিক ১০টা ৩০ মিনিটে আমাকে ডাক দিয়ে বলে চাচা ঘরে আছে? উত্তরে নেই বললেও দরজাটা খুলতে বলেন। আমি দরজা খুলতেই আমার ঘরে প্রবেশ করে দরজা বন্ধ করে দিয়ে আমার মুখ চেপে ধরে এবং ভয়ভীতি দেখিয়ে একপর্যায়ে আমাকে ধর্ষণ করে এমনকি গোপনে একটি ভিডিও ফুটেজ ধারন করে। পরবর্তি সময়ে এই ভিডিও প্রকাশ করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে একাধিকবার আমাকে ধর্ষণ করে।

একদিন আমার স্বামী বিষয়টি দেখে ফেলে। তখন সব সত্য ঘটনা বলতে বাধ্য হই। এরপর জহির মিয়া আব্দুর রহমান নামে এক ব্যক্তিকে আমার সাথে ধর্ষণ করতে নিয়ে আসেন।প্রতিবাদ করলে ভিডিও প্রকাশ করে দিবে ভয় দেখিয়ে আমাকে আবারও ধর্ষণ করে।

ধর্ষিতার স্বামী আলম মিয়া জানান, আমি অভাব অনটনের সংসারে দিন -রাত তাদের ভাইয়ের দেয়া জায়গায় ক্ষুদ্র একটি হোটেলে কাজ করতাম। বিষয়টি জানার পর পারিবারিকভাবে জহিরের পরিবারকে জানালে উল্টো আমাকে ধর্ষণকারীর সহোদর নিকলী থানা ছাত্রলীগের অলিখিত সভাপতি ইমরুল হাসান প্রকাশ্যে হুমকি দিয়ে বলে “বিষয়টি বলাবলি করলে তোকে জীবনের শেষ করে ফেলব ” আমাদের বিরুদ্ধে থানা হাজত করে কিছুই করতে পারবে না, তুই নিজেই ধ্বংস হয়ে যাবে।

১৬ই ডিসেম্বর রোজ সোমবার আমার অনুপস্থিতিতে ইমরুল হাসান ও তার সহোদর রহিমা আক্তারসহ তাদের পরিবারের বেশ কয়েকজন মিলে চাপে ফেলে ছোটছোট বাচ্চাদেরকে পর্যন্ত ঘর হতে বের করে দিয়ে জহিরকে নির্দোষ প্রমাণ করতে পুনরায় একটি ভিডিও ধারন করে। স্বামী আলম মিয়া বাড়িতে এসে অবুঝ শিশুদের কান্নায় বিজড়িত কণ্ঠে ঘটনাটি শুনার পর অবস্থা বেগতিক দেখে সাংবাদিকদের সঙ্গে মুখ খোলেন।

গণমাধ্যম কর্মীরা প্রশ্নোত্তর পর্বে গত১৭ ডিসেম্বর ২০১৯খ্রি. মঙ্গলবার একটি ভিডিও ধারন করেন। ঘটনাক্রমে নিকলী থানা হতে এস আই ইসমাইল হোসেন তাৎক্ষণিক আলমের বিরুদ্ধে একটি মামলার তদন্তে আসেন।আলম মিয়া নিকলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে মুঠোফোনের মাধ্যমে তার স্ত্রীর উপর ধর্ষণের ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে গিয়ে তার বিরুদ্ধে সাজানো অভিযোগ করা হয়েছে বলে দাবি জানান। ২১,ডিসেম্বর ২০১৯খ্রি. রোজ শনিবার একদল গণমাধ্যম কর্মী গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এ পরিবার বর্গের বিভিন্ন অপরাধের বিরুদ্ধে অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে এসে আলমকে মুঠোফোনে বাজারে আসতে বলে।

আলমের উপস্থিতিতে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে সাংবাদিকরা দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন। এই সময় নিকলী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরুল হাসান নিজে লোহার রড দিয়ে আঘাত করে এবং তার নেতৃত্বে অপরাধীচক্রের সমন্বয়ে আলমকে অতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে বেধরক মারপিট করে অজ্ঞান অবস্থায় নিকলী থানার পুলিশের হাতে সোপর্দ করে।এ ঘটনায় রাতে অভিযোগ দিয়ে সকালে হাজতে প্রেরণ করে।

আলমের সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোন যার নাম্বার ০১৯১০৮৪৮৯৮৭ সম্বোলিত একটি এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোনসহ দোকান বিক্রয় করা প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার টাকাও কেড়ে নেওয়া হয়েছে বলে আলমের পরিবার এ প্রতিবেদককে জানান। তবে এই ব্যপারে নিকলী থানা ছাত্রলীগের বিতর্কিতও অলিখিত সভাপতি ইমরুল হাসানের নিকট এই প্রতিবেদক জানতে চান”আলম মিয়া সাংবাদিকদের সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার কথা বলার পর নিকলী টু কিশোরগঞ্জস্থ মূল রাস্তার পাশে কুর্শা বাজারে স্বাক্ষাত করার পর মিনিট-কয়েকের মধ্যেই আপনার নির্দেশে ও আপনার দ্বারা আক্রমণের শিকার হয়েছে এমনকি আপনি বাদী হয়ে একটি সাজানো মামলায়ও ফাঁসিয়ে দিয়েছেন?” এ প্রশ্নের জবাবে ইমরুল হাসান বলেন, সত্য ঘটনায় মামলা দায়ের করেছি।

বিষয়টি নিয়ে এলাকাবাসীর মুখে মুখে তীব্র সমালোচনার ঝড় উঠেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অসংখ্য এলাকাবাসী জানান প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে সত্য ঘটনার বিচার চাইতে যাওয়াটাই আজ আলমের জন্য কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। এলাকাবাসী আরও জানান তাদের অপকর্মের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে মুখ খোলার মানে হলো বিপদ ডেকে আনা। এদের অপকর্মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের সাহস নাই তাই মনে মনে ঘৃণা করি।

কথিত আছে এই পরিবারটি অবৈধ উপায়ে কামাল ব্রিক ফিল্ড তৈরি করায় রোদানদীতে ইটের রাবিশ ফেলে মাছ চাষের অভয় আশ্রমটি করছে ধ্বংস, সংলগ্ন একটি মাদ্রাসা ও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনায় ব্যাঘাত ঘটানোর পাশাপাশি হাট-বাজারের জনচলাচলের বিঘ্ন ঘটা তথা কালো ধোঁয়ায় করছে পরিবেশ দূষণ। একই মালিকের যৌথ সামিয়া ব্রিক ফিল্ড নামে একই থানাধীন বনমালীপুর ও আঠার বাড়ীয়া গ্রামের দুই ফসলি আবাদি জমিতে ইটভাটা নির্মাণ করার কারণে অন্যান্য ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে এমনকি রাস্তা ঘেঁষে ইটভাটা নির্মিত হওয়ার কারণে জনচলাচলেরও ব্যঘাত ঘটছে। পাশাপাশি অতিরিক্ত মাটি বোঝাই করার কারণে মেঠো ও সরু রাস্তাগুলোর বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

তাদের বিভিন্ন অপকর্মের বিরুদ্ধে ও ইটভাটা বন্ধের দাবিতে দফায় দফায় প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত ও মৌখিক অভিযোগ দায়ের করেও প্রতিকার না পেয়ে ভুক্তভোগীরা আইনের প্রতি হতাশা প্রকাশ করেছেন। শুধু তাই নয় ইটভাটার কাজে ব্যবহৃত অদক্ষ ড্রাইভারদের দ্বারা প্রাণ হারালো ৫ম শ্রেণীর ছাত্র নিকলী উপজেলার কামালপুর গ্রামের ময়না মিয়ার ছেলে মোশাররফ(১১), পশ্চিম কুর্শা গ্রামের সাইদুর রহমানের ছেলে সাদেক(১৫),ও পাচরুখী গ্রামের যুবক সেন্টু মিয়া ।

এছাড়া আহত হয়েছে অনেককেই। ক্ষতিপূরণ বাবদ দেওয়া হয়েছে নাম মাত্র। নিহত কামালপুর গ্রামের মোশাররফের সহোদর মন্টু মিয়া আক্ষেপ করে বলেন “ওরা প্রভাবশালী এদের বিরুদ্ধে মামলা মোকদ্দমা করে কিছুই করতে পারবো না তাই নামমাত্র টাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরো সংবাদ
© নাগরিক এক্সপ্রেস । সর্বসত্ব সংরক্ষিত। নাগরিক এক্সপ্রেস এর প্রকাশিত প্রচলিত কোনো সংবাদ তথ্য ছবি আলোকচিত্র রেখা চিত্র ভিডিও চিত্র অডিও কনটেস্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামত এর জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ণ লেখক এর
Theme Customized By Theme Park BD
error: Content is protected !!