1. admin@nagorikexpress.com : নাগরিক এক্সপ্রেস : Nagorik Express প্রশাসন
  2. allmohiminulkhan@gmail.com : Khan allmohiminulkhan : Khan allmohiminulkhan
  3. khalidsyful@gmail.com : syful Khalid : syful Khalid
  4. abukawsirahmed638@gmail.com : Abu Kawsar : Abu Kawsar
  5. abdullahyeasir@gmail.com : MASUD Alom : MASUD Alom
  6. mizanbd@gmail.com : Mizan Khan : Mizan Khan
  7. nayemk255@gmail.com : Nayem Nayem : Nayem Nayem
  8. dailydhakartime@gmail.com : Nayim Khan : Nayim Khan
  9. hasan145nazmul@gmail.com : Tarak : Tarak Sarkar
  10. rd278591@gmail.com : RA Rahul : RA Rahul
  11. cablew742@gmail.com : Sojal Mia : Sojal Mia
বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৫২ অপরাহ্ন

৩ নারীতেই সর্বনাশ কুমিল্লার ইন্সপেক্টর সালাউদ্দিনের!

  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ২০ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ১৮৩ সময় দেখা

৩ নারীতেই সর্বনাশ কুমিল্লার ইন্সপেক্টর সালাউদ্দিনের!

ময়মনসিংহ ডেক্সঃঘরে দুই স্ত্রী। সুশ্রী-সুন্দর দু-জনই। তারপরও পরকীয়ায় মজেছেন কুমিল্লার পুলিশ পরিদর্শক মো. সালাউদ্দিন। এর এতে ফেঁ’সে গেছেন তিনি। আজমীরি খন্দকার পপির ভালোবাসা নিয়ে গেছে তাকে জে’লে।গত রোববার দ্বিতীয়

স্ত্রীর মা’মলায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার একটি আ’দালত কা’রাগারে পাঠিয়েছেন পুলিশের এই কর্মক’র্তাকে। প্রথম স্ত্রীও মা’মলা করেছেন তার বি’রুদ্ধে। সালাউদ্দিন কুমিল্লা কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (ত’দন্ত) ছিলেন।

স্ত্রীদের অ’ভিযোগসহ নানা কারণে তাকে থা’না থেকে প্র’ত্যাহার করা হয়। দ্বিতীয় স্ত্রী ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা যুব মহিলা লীগ নেত্রী তাহমীনা আক্তার পান্না জানান, আজমীরির সঙ্গে ৩ বছর ধরে পরকীয়ায় লিপ্ত সালাউদ্দিন। পরকীয়া শুরুর পর থেকে তার প্রতি আগ্রহ কমে যায় সালাউদ্দিনের।ব্রাহ্মণবাড়িয়া আসা বা তার সঙ্গে যোগাযোগ

কমিয়ে দেন ওই সময় থেকে। কিন্তু সেটি তিনি বুঝতে পারেন প্রথম স্ত্রীর ডিআইজি’র কাছে অ’ভিযোগ দেয়ার পর। তাতে সালাউদ্দিনের পরকীয়া প্রেমিকা আজমীরির বি’রুদ্ধে অ’ভিযোগ করা ছাড়াও সালাউদ্দিন আমাকে বিয়ে করেছে সেটিও উল্লেখ করা হয়।

ডিআইজি স্যার কুমিল্লার পুলিশ সুপারকে বিষয়টি ত’দন্তের নির্দেশ দিলে সেখান থেকে আমাকে নোটিশ পাঠানো হয়। নভেম্বরের ১১ তারিখ কুমিল্লায় গিয়ে আমি প্রথম শুনতে পারি সালাউদ্দিন আজমীরি নামে এক মহিলার সঙ্গে পরকীয়া করছে। যার স্বামীর নাম আফজল। আজমীরির বাড়ি খুলনা হলেও সে কুমিল্লায় নানার বাড়ি থাকে।এটি শোনার পর আমার মাথায় যেন আকাশ ভে’ঙে পড়ে। এই আজমীরি সালাউদ্দিনের প্রথম স্ত্রীকে নিয়মিত থ্রে’ট দিতো। বাসা থেকে বের হয়ে যাওয়ার জন্যে চা’প দিতো । বলতো সেই সালাউদ্দিনের স্ত্রী। নানাভাবে ট’র্চার করতো প্রথম স্ত্রীকে। সালাউদ্দিনও ঘর ত্যা’গী হন। ৫ মাস বড় স্ত্রীকে ছেড়ে বাসার বাইরে ছিলেন।

এরপর তিনি বাধ্য হন ডিআইজি’র কাছে অ’ভিযোগ দিতে। পান্না জানান, প্রথম স্ত্রী এবং সে ছাড়াও পুলিশের নোটিশ পেয়ে ওইদিন আজমীরিও হাজির হয়েছিলো কুমিল্লার পুলিশ সুপার কার্যালয়ে। সালাউদ্দিনও ছিলেন সেখানে। পদস্থ পুলিশ কর্মকর্তারা তাদের অ’ভিযোগ শুনেন। এরপর আরো কয়েক দফা এনিয়ে কুমিল্লার পুলিশ সুপার কা’র্যালয়ে বসেন তারা।

সালাউদ্দিনের প্রথম স্ত্রী শামসুন্নাহার সুইটির ঘরে ৯ বছরের একটি ছেলে ও ৫ বছরের একটি মেয়ে রয়েছে। সুইটির সঙ্গে সালাউদ্দিনের বিয়ে হয় ২০০৬ সালে। এর ৮ বছর পর বিয়ে করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মেয়ে পান্নাকে। পান্নার ঘরে রয়েছে ৩ বছরের আরেকটি কন্যা সন্তান। কুমিল্লায় একটি মা’মলার কাজে সালাউদ্দিনের কাছে গিয়ে ফাঁ’দে পড়েন পান্না।

অবশেষে দুই স্ত্রীই সালাউদ্দিনের বি’রুদ্ধে যৌ’তুকের মা’মলা করেন। গত রোববার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট আনোয়ার সাদাত দ্বিতীয় স্ত্রী পান্নার মা’মলায় জে’ল হা’জতে প্রেরণের আ’দেশ দেন সালাউদ্দিনকে। পান্না গত ১লা ডিসেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অ’তিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট আদালতে যৌতুক নি’রোধ আ’ইনে এ মা’মলা করেন।

এই মা’মলায় বিচারক সমন জারি করে সালাউদ্দিনকে ১৫ই ডিসেম্বর অর্থাৎ রোববার আ’দালতে হাজির হতে নি’র্দেশ দেন। সমন অনুসারে সালাউদ্দিন আদালতে হাজির হলে আদালত তাকে জে’লহা’জতে প্রেরণের নি’র্দেশ দেন। মা’মলার এজাহারে বলা হয়, ২০১৪ সালের ৫ই ফেব্রুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের পশ্চিম মেড্ডা এলাকার মৃ’ত শরাফ উদ্দিনের মেয়ে তাহমিনা আক্তার পান্নার সঙ্গে ই’সলামি শরীয়ত মোতাবেক চট্টগ্রামের হাটহাজারী উত্তর মাদ্রাসা এলাকার সামসুল আলমের ছেলে সালাউদ্দিনের দ্বিতীয় বিয়ে হয়।

বিয়ের সময় ১৫ লাখ টাকা দেনমোহর নির্ধারণ করা হয়। বিয়ের পর তাহমিনা একটি মেয়ে সন্তানের জন্ম দেন। তার বয়স তিন বছর। গত তিন-চার মাস আগে তাহমিনার কাছে ২০ লাখ টাকা যৌ’তুক দা’বি করেন সালাউদ্দিন। গত ১৫ই নভেম্বর সালাউদ্দিন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এসে শ্বশুর বাড়ির লোকজনের সামনে পুলিশের চাকরিতে পদোন্নতির কথা বলে আবার ২০ লাখ টাকা যৌ’তুক দাবি করেন। যৌ’তুকের ২০ লাখ টাকা না দিলে অন্যত্র বিয়ে করবে বলে তাহমিনাকে ভ’য় দেখান সালাউদ্দিন।

টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তাহমিনাকে নাকে মুখে চ’র-থা’প্পড়, কি’ল, ঘু’ষিসহ এলোপাতাড়ি মা’রধর করেন সালাউদ্দিন। পরে স্ত্রী ও সন্তানকে ফেলে রেখে ঘটনাস্থল থেকে চলে যান। ঘটনার পরপর বিষয়টি কুমিল্লার পুলিশ সুপারকে জানিয়েও কোনো বিচার পাননি তাহমিনা। এজন্য বিচার পাওয়ার আশায় তিনি আ’দালতের দ্বারস্থ হন বলে এজাহারে উল্লেখ করেন।

পান্নার আ’ইনজীবী তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত বলেন, যৌ’তুক নি’রোধ আ’ইনের ৩ ধারায় স্বামীর বি’রুদ্ধে মা’মলা দা’য়ের করেন তাহমিনা। এই মা’মলার একমাত্র আ’সামি পুলিশ পরিদর্শক সালাউদ্দিন আ’দালতে হাজির হলে আ’দালত তাকে কা’রাগারে পাঠানোর নি’র্দেশ দেন।

ওদিকে সালাউদ্দিনের বি’রুদ্ধে গত ৩০শে নভেম্বর তার প্রথম স্ত্রী শামসুন নাহার সুইটি কুমিল্লার নারী ও শিশু নি’র্যাতন দ’মন আ’দালতে যৌ’তুক ও নি’র্যাতনের আরেকটি মা’মলা দা’য়ের করেন। মা’মলাটি আ’দালত ত’দন্তের নি’র্দেশ দেয়। এছাড়াও ভ’য়ভী’তি দেখিয়ে দেড় কোটি টাকার চেক আদায়ের অ’ভিযোগে কুমিল্লার ১ নম্বর আমলি আদালতে আরেকটি মা’মলা করেন কুমিল্লা নগরের মনোহরপুর এলাকার বাসিন্দা মো. মহিউদ্দিন। এসব মা’মলার পরই কুমিল্লার কোতয়ালি থানার ত’দন্ত পরিদর্শকের দায়িত্ব থেকে সালাউদ্দিনকে প্র’ত্যাহার করা হয়। তাঁকে কুমিল্লা পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরো সংবাদ
© নাগরিক এক্সপ্রেস । সর্বসত্ব সংরক্ষিত। নাগরিক এক্সপ্রেস এর প্রকাশিত প্রচলিত কোনো সংবাদ তথ্য ছবি আলোকচিত্র রেখা চিত্র ভিডিও চিত্র অডিও কনটেস্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামত এর জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ণ লেখক এর
Theme Customized By Theme Park BD
error: Content is protected !!