1. admin@nagorikexpress.com : admin :
রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ০৯:৩৬ অপরাহ্ন
নোটিশ :
পরিচালনা পরিষদ: নাগরিক এক্সপ্রেস এর আইডি কার্ড এর মেয়াদ সম্পূর্ণ কোন সাংবাদিক নেই . সকলের আইডি কার্ডের মেয়াদ শেষ। দ্রুত আইডি কার্ড সংগ্রহ করুন জনপ্রিয় পত্রিকা নাগরিক এক্সপ্রেস এর পক্ষ থেকে সবাইকে পরিচালনা পরিষদের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন । বর্তমানে সারা বাংলাদেশে আইডি কার্ড ধারি আমাদের কোন সংবাদ কর্মী নেই যারা আছেন তাদের আইডি কার্ডের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে তাই উক্ত সাংবাদিকগণ আমাদের প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন বলে বিবেচিত হবে না। যদি কারো আইডি কার্ডের প্রয়োজন হয় তাহলে খুব শীঘ্রই আমাদের সাথে যোগাযোগ করবেন। আপনি কি সাংবাদিক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চান? আপনি কি সমাজের সমস্ত অন্যায় অপরাধ দুর্নীতির বিরুদ্ধে লিখতে চান? তাহলে আজই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন. নিরপেক্ষ সংবাদ এর সন্ধানে। আপনার এলাকায় ঘটে যাওয়া যেকোনো অনিয়ম দুর্নীতি আমাদের কাছে ইমেইলের মাধ্যমে পাঠাতে পারেন অথবা নিচে দেওয়া আমাদের নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারেন সারাদেশে সাংবাদিক নিয়োগ চলছে সাংবাদিক হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে আজি আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন.

বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন, আত্মগোপনে ছেলের পরিবার

  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ৫ আগস্ট, ২০২২
  • ১৭৭ বার পঠিত

মনোহরদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি

নরসিংদীর মনোহরদীতে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে বসেছে দশম শ্রেণির এক ছাত্রী। গত মঙ্গলবার (২ আগস্ট) সন্ধ্যায় খিদিরপুর ইউনিয়নের চরসাগরদী গ্রামে প্রেমিক রাকিবের বাড়িতে অনশন শুরু করে ওই কিশোরী।

কথিত প্রেমিক রাকিব ওই গ্রামের মৃত নূরুল হকের ছেলে এবং স্থানীয় একটি কলেজের ছাত্র। অনশনরত প্রেমিকা রাকিবের প্রতিবেশী এবং রামপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী। মেয়েটির অনশনের পর থেকে প্রেমিকের পরিবারের লোকজন আত্মগোপনে রয়েছে।
প্রেমিকা জানায়, চার বছর ধরে রাকিবের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক চলছে। মাঝেমধ্যে দুজন বিভিন্ন স্থানে দেখা করত ও বেড়াতে যেত। বিয়ের প্রলোভনে রাকিব একাধিকবার তার সঙ্গে জোরপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক করেন বলেও অভিযোগ কিশোরীর। পরে বিষয়টি এলাকার লোকজন জেনে যায়। সম্প্রতি বিয়ের জন্য চাপ দিলে রাকিব তার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করার চেষ্টা করেন। ফলে নিরুপায় হয়েই তার বাড়িতে এসে আমরণ অনশনে বসে। বিয়ে না করা পর্যন্ত সে অনশন চালিয়ে যাবে বলে ঘোষণা দেয়।

অভিযুক্ত রাকিবের বাড়িতে গেলে পরিবারের কাউকে খুঁজে না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে খিদিরপুর ইউপি চেয়ারম্যান কাউসার রশিদ বিপ্লব জানান, ঘটনাটি জানতে পেরে দুই পক্ষকেই ইউনিয়ন পরিষদে ডাকা হয়েছিল। কিন্তু ছেলের পরিবারের লোকজন সাড়া না দেওয়ায় সমাধান করা সম্ভব হয়নি।
রামপুর পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© নাগরিক এক্সপ্রেস । সর্বসত্ব সংরক্ষিত। নাগরিক এক্সপ্রেস এর প্রকাশিত প্রচলিত কোনো সংবাদ তথ্য ছবি আলোকচিত্র রেখা চিত্র ভিডিও চিত্র অডিও কনটেস্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামত এর জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ণ লেখক এর
Theme Customized By Shakil IT Park