1. admin@nagorikexpress.com : admin :
বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:০৪ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
পরিচালনা পরিষদ: নাগরিক এক্সপ্রেস এর আইডি কার্ড এর মেয়াদ সম্পূর্ণ কোন সাংবাদিক নেই . সকলের আইডি কার্ডের মেয়াদ শেষ। দ্রুত আইডি কার্ড সংগ্রহ করুন জনপ্রিয় পত্রিকা নাগরিক এক্সপ্রেস এর পক্ষ থেকে সবাইকে পরিচালনা পরিষদের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন । বর্তমানে সারা বাংলাদেশে আইডি কার্ড ধারি আমাদের কোন সংবাদ কর্মী নেই যারা আছেন তাদের আইডি কার্ডের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে তাই উক্ত সাংবাদিকগণ আমাদের প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন বলে বিবেচিত হবে না। যদি কারো আইডি কার্ডের প্রয়োজন হয় তাহলে খুব শীঘ্রই আমাদের সাথে যোগাযোগ করবেন। আপনি কি সাংবাদিক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চান? আপনি কি সমাজের সমস্ত অন্যায় অপরাধ দুর্নীতির বিরুদ্ধে লিখতে চান? তাহলে আজই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন. নিরপেক্ষ সংবাদ এর সন্ধানে। আপনার এলাকায় ঘটে যাওয়া যেকোনো অনিয়ম দুর্নীতি আমাদের কাছে ইমেইলের মাধ্যমে পাঠাতে পারেন অথবা নিচে দেওয়া আমাদের নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারেন সারাদেশে সাংবাদিক নিয়োগ চলছে সাংবাদিক হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে আজি আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন.
শিরোনাম :
মতলব উত্তর এ প্রতিপক্ষের গুষিতে ইউপি সদস্যের মৃত্যু টেকনাফে আইডিয়াল একাডেমি কে.জি. স্কুলের পক্ষ থেকে বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত মাদারীপুর বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন ৩০ বছর পর দেখা আপ্লুত বন্ধুমহল ভাঙ্গায় বর্ণিল আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উৎযাপিত মাদারীপুরে পূর্ব শত্রুতার জেরে হামলা চালিয়ে ১৫টি বসতঘর ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ ভাঙ্গায় এস. এসসি- ৯২ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘ অঙ্গীকার-” সংগঠনের আয়োজনে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত দেশবাসীকে  আমিনুল ইসলাম আমিন তপদারের ঈদ শুভেচ্ছা ভাঙ্গায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় শায়লার উদ্যোগে হতদরিদ্রদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ মাদারীপুরে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের সদস্য গ্রেফতার

ভাঙ্গায় এনজিওর কিস্তি টাকা উত্তোলনকে কেন্দ্র করে ৬ পুলিশ সহ এনজিও কর্মীদের ওপর হামলা, আহত-১২

  • আপডেট সময় : রবিবার, ৩ মার্চ, ২০২৪
  • ১০৭ বার পঠিত

আব্দুল মান্নান, ভাঙ্গা(ফরিদপুর)প্রতিনিধি-

ফরিদপুরের ভাঙ্গায় এনজিওর কিস্তির টাকা উত্তোলনকে কেন্দ্র করে ৬ পুলিশ ও এনজিও কর্মী সহ ১২ জন আহত হয়েছে। শনিবার (২ মার্চ) রাতে ভাঙ্গা উপজেলার আলগী ইউনিয়নের সুয়াদী গ্রামে এ হামলার ঘটনা ঘটে। পুলিশের উপর হামলার সংবাদ পেয়ে ভাঙ্গা সার্কেল এডিশনাল এসপি, ভাঙ্গা থানার ওসি সহ পুলিশের ২টি টিম ঘটনা স্থলে গিয়ে আহত পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে ভাঙ্গা হাসপাতালে চিকিৎসা দেন। এলাকার পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত আছে।

আহতরা হলেন, ভাঙ্গা থানার পুলিশের এস,আই মোঃ সিরাজুল ইসলাম, এস,আই মোঃ মনিরুল ইসলাম, কনস্টেবল লিটু শেখ, কনস্টেবল মুরাদ হোসেন, কনস্টেবল জাহিদ, কনস্টেবল ফারুক, পল্লী প্রগতি সহায়ক সমিতির ভাঙ্গা শাখার ম্যানেজার আক্তার হোসেন, মাঠ কর্মী মোঃ আবুল হাসান সহ ৫ জন এবং সন্তান সম্ভবা এক নারী । আহত ৬ পুলিশ সহ আরো ৬ জন ভাঙ্গা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

এ বিষয় ভাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মামুনুর আল রশিদ জানান, পল্লী প্রগতি সহায়ক সমিতির ইউনিট ম্যানেজার আকতার হোসেন সহ তার ৬ জন কর্মীকে মারধর করেছে মর্মে ভাঙ্গা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেয়। তার অভিযোগের ভিত্তিতে কয়েকজন পুলিশ রাতে সুয়াদী গ্রামে তদন্তে সরেজমিনে যায়।
তখন পুলিশের তদন্তের কাজে বাধা দিয়ে একটি চক্র বিভ্রান্তিকর ও মিথ্যা তথ্য গ্রামবাসীর মধ্যে ছড়িয়ে দিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি করে। পরে উত্তেজিত জনতা পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় পুলিশের দুই এসআই ও চারজন কনস্টেবল আহত হয়।

এব্যাপারে ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ তানভির আহমেদ জানান, রাতে দুইজন এসআই ও ৪ জন পুলিশের কনস্টেবল হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। তাদের শরীরের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এর আগে দুপুরে আরো ৫ এনজিও কর্মী প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন এনজিও কর্মী ও সুয়াদী গ্রামের একজন সন্তান সম্ভাবা নারী হাসপাতালে ভর্তি আছে ।

এব্যাপারে পল্লী প্রগতি সহায়ক সমিতির ইউনিট ম্যানেজার আকতার হোসেনের একটি লিখিত অভিযোগ ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শনিবার সকাল ১১টার দিকে প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজার সহ পাঁচজন কিস্তির পাওনা টাকা আদায় করার জন্য আলগী ইউনিয়নের সুয়াদী গ্রামের তারা মিয়ার বাড়িতে যায়। তারা মিয়া বাড়িতে না থাকায় তার মোবাইলে কিস্তির টাকার জন্য যোগাযোগ করা হয়। এ সময় মোবাইলে কিস্তির পাওনা টাকা নিয়ে ২জনের মধ্য কাটাকাটি ও অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ শুরু করে। এক পর্যায়ে আকতার ফোন কেটে দিয়ে অফিসের সবাইকে নিয়ে তারার বাড়ি থেকে ভাঙ্গা অফিসের উদ্দেশে রওনা হন। পথিমধ্যে তারা মিয়া সহ তার সহযোগী ৮/ ১০ জন যুবক আকতার হোসেন ও তার কর্মীদের উপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং স্টাফদের কাছে থাকা প্রায় দুই লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয় হামলাকারীরা। পরে এনজিও কর্মীদের ডাক চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসেন। তাদেরকে উদ্ধার করে ভাঙ্গা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়। এ ঘটনা নিয়ে ভাঙ্গা থানায় গিয়ে অভিযোগ দেন আকতার হোসেন। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে শনিবার রাতে পুলিশ তারা মিয়ার বাড়িতে যায়। তখন তারা মিয়াকে পুলিশ ধরে আনার চেষ্টা করলে তারামিয়া দৌড়ে পালিয়ে যায়। তখন তারামিয়ার সন্তানসম্ভবা স্ত্রী কনি বেগম হঠাৎ অসুস্থ হয়ে মাটিতে শুয়ে পড়েন। তখন গ্রামবাসী আবার মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে কনি বেগম স্ট্রোকে মারা গেছেন। -এমন বিভ্রান্তিকর তথ্য আশপাশে ছড়িয়ে পড়লে গ্রামের শতাধিক মানুষ উত্তেজিত হয়ে পুলিশের ওপর হামলা করে। এতে পুলিশের দুইজন এসআই ও কনস্টেবলসহ ছয় পুলিশ আহত হয়।

এঘটনায় আলগী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ম. ম সিদ্দিক মিয়া জানান, রাতেই শুনেছি ঘটনাটি খুবই দুঃখ জনক। যাহারা পুলিশের উপর হামলা করেছে এবং এনজিও কর্মীদের মারধর করেছে, তদন্তপূর্বক তাদের বিরুদ্ধে আইনগতভাবে ব্যবস্থা নেয়া হোক।

আহত ভাঙ্গা থানার এসআই মনিরুল ইসলাম জানান, তারামিয়া একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তার নামে চুরি-ছিনতাই সহ বিভিন্ন অপরাধের একাধিক মামলা রয়েছে। তাকে ধরতে গিয়ে আমাদের উপর গ্রামবাসী হামলা চালায়।

এ ব্যাপারে ভাঙ্গা সার্কেল এডিশনাল এস,পি তালাশ মাহমুদ শাহানশাহ জানান,
পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

০৩/০৩/২০২৪
০১৭২৯০৩৮৭০০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© নাগরিক এক্সপ্রেস । সর্বসত্ব সংরক্ষিত। নাগরিক এক্সপ্রেস এর প্রকাশিত প্রচলিত কোনো সংবাদ তথ্য ছবি আলোকচিত্র রেখা চিত্র ভিডিও চিত্র অডিও কনটেস্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামত এর জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ণ লেখক এর
Theme Customized By Shakil IT Park